Aikyashree Scholarship ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ অনলাইন ফরম ফিলাপ ও কি কি ডকুমেন্টস – বিস্তারিত


পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২০ এর অনলাইন আবেদন পদ্ধতি ও অন্যান্য বিস্তারিত তথ্য। ঐক্যশ্রী হল পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নতুন একটি প্রকল্প সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য। পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন দপ্তরের সহায়তায় এই ঐক্যশ্রী প্রকল্পটি চালু হয়, এর মাধ্যমে প্রথম শ্রেণী থেকে পি এইচ ডি কোর্সে পাঠরত ছাত্রছাত্রীরা অনলাইনে বিভিন্ন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবে। বিভিন্ন ধরনের স্কলারশিপ যেমন – প্রি-ম্যাট্রিক, পোষ্ট-ম্যাট্রিক ও স্বামী বিবেকানন্দ মেরিটকাম মিনস স্কলারশিপ।

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ Aikyashree Scholarship এই লেখাটিতে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়েছে যে, ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের (Aikyashree Scholarship) মূল লক্ষ্য কি, কারা এই স্কলারশিপের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবে এবং কিভাবে অনলাইনে আবেদন করা যাবে।[ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ 2021 কত টাকা]

বিভিন্ন ধরনের ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ:


বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন দপ্তর ঐক্যশ্রী প্রকল্পের আওতায় নিম্নলিখিত চার ধরনের স্কলারশিপ প্রদান করছে –

  • প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (প্রথম থেকে দশম শ্রেণীর ছাত্র ছাত্রীদের জন্য)
  • পোষ্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (একাদশ থেকে Ph.D কোর্স পর্যন্ত)
  • মেরিট কাম মিনস স্কলারশিপ (টেকনিক্যাল ও প্রফেশনাল কোর্সের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য)
  • ট্যালেন্ট সাপোর্ট স্কলারশিপ (TSP)

এই প্রকল্পের মূল লক্ষ্য গুলি:

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের (Aikyashree Scholarship) প্রাথমিক লক্ষ্য হল, পিছিয়ে পড়া সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের বিদ্যালয়ে পাঠানো এবং ড্রপ আউট হার কমানো। পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার জন্য উৎসাহিত করা এবং উচ্চশিক্ষার খরচ বহনের মাধ্যমে তাদের আর্থিক ভাবে সাহায্য করা। ছাত্র ছাত্রীরা যাতে দ্রুত স্কলারশিপের টাকা পায় তার ব্যবস্থা করা এবং সহজে ও কোন ঝামেলা ছাড়া বিভিন্ন স্কলারশিপ এর জন্য অনলাইনে আবেদন। দ্রুত স্কলারশিপ বিতরণ। সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী বিভিন্ন ইঞ্জিনিয়ারিং, মেডিকেল ও অন্যান্য টেকনিক্যাল ও প্রফেশনাল কোর্সে পড়াশোনা করছে তাদের আর্থিক ভাবে সাহায্য করা এবং তাদের যোগ্যতার মানোন্নয়ন করা।[ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ কাদের জন্য]

ঐক্যশ্রী প্রকল্পে আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা:

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন ধরনের স্কলারশিপের অনলাইনে আবেদনের আবেদনকারীকে অবশ্যই একজন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অন্তর্গত ছাত্র বা ছাত্রী হতে হবে। এছাড়া অন্যান্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা গুলি নিচে আলোচনা করা হল।

প্রি-ম্যাট্রিক ও পোষ্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ:


ঐক্যশ্রী প্রি-ম্যাট্রিক অথবা পোষ্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপের অনলাইনে আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা গুলি হল –

  • আবেদনকারীকে অবশ্যই একজন পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  • আবেদনকারীকে অবশ্যই কোন স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটি বা প্রতিষ্ঠানে পাঠরত থাকতে হবে প্রতিষ্ঠানটি অবশ্যই কোন নির্দিষ্ট শিক্ষা বোর্ড / কাউন্সিল / ইউনিভার্সিটি স্বীকৃত হতে হবে।
  • যে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী ১ম শ্রেণি থেকে ১০ম শ্রেণিতে পাঠরত তারা Pre-matric স্কলার্শিপ এর জন্য আবেদন করতে পারবে।
  • যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী উচ্চমাধ্যমিক, ITI, Diploma, Graduation, Post Graduation, M.Phil, B.Ed সে পাঠরত তারা পোস্ট ম্যাট্রিক স্কলারশিপ এর জন্য আবেদন করতে পারবে।
  • শেষ পরীক্ষায় আবেদনকারীকে অবশ্যই ন্যূনতম ৫০% নাম্বার নিয়ে পাশ করে থাকতে হবে।
  • আবেদনকারীর বাৎসরিক পারিবারিক আয় ২ লক্ষ টাকার বেশি হওয়া চলবে না।
  • কোন ছাত্র বা ছাত্রী যদি পশ্চিমবঙ্গের বাইরের কোন প্রতিষ্ঠান থেকে পড়াশোনা করে, তাহলে সে এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবে না।

মেরিটকাম মিনস স্কলারশিপ:


স্মেরিটকাম মিনস্ স্কলারশিপের জন্য অনলাইনে আবেদনের প্রয়োজনীয় যোগ্যতা গুলি নিচে আলোচনা করা হলো।
  • আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের একজন স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  • যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী স্নাতক অথবা স্নাতকোত্তর স্তরে পাঠরত পশ্চিমবঙ্গের স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয়গুলির অধীনে স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে কারিগরি পেশাগত কোর্সে পাঠরত। পশ্চিমবঙ্গের বাইরে ও ভেতরে বসবাসকারী যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী IIT, IIM, NIT, NIFT, IFFT ইত্যাদি তালিকাভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পড়াশোনা করছে তারা এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবে।
  • পারিবারিক আয় বছরে ২.৫০ লক্ষ টাকার কম হতে হবে।
  • আবেদনকারীকে অবশ্যই শেষ পরীক্ষায় কমপক্ষে 50 শতাংশ নম্বর পেতে হবে।

স্বামী বিবেকানন্দ মেরিটকাম মিনস স্কলারশিপ (SVMCM)


একাদশ থেকে স্নাতকোত্তর শ্রেণী পর্যন্ত মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বামী বিবেকানন্দ মেরিটকাম মিনস স্কলারশিপ (SVMCM) প্রদান করে থাকে। এই স্কলারশিপে অনলাইন আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা গুলি হল-
  • শিক্ষার্থীকে পশ্চিমবঙ্গের একজন স্থায়ী অধিবাসী হতে হবে।
  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে অবস্থিত হতে হবে।
  • যে সমস্ত শিক্ষার্থী এই রাজ্যের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে পড়াশোনা করছে তারা মাধ্যমিক / উচ্চমাধ্যমিক / মাদ্রাসা এডুকেশন এবং পশ্চিমবঙ্গের অন্যান্য স্বীকৃত বোর্ড থেকে পাস করার পর যোগ্য বলে বিবেচিত হবে।
  • ছাত্র-ছাত্রীদের শুধু বর্তমান বর্ষে অর্থাৎ ২০২1 পাশ করতে হবে।
  • পারিবারিক বাৎসরিক আয় ২.৫০ লক্ষ্য টাকার মধ্যে হতে হবে।
বর্তমান পাঠরত কোর্স বিগত পরীক্ষায় প্রাপ্ত ন্যূনতম নম্বর
উচ্চমাধ্যমিক,পলিটেকনিক স্নাতক 75%
স্নাতকোত্তর 53% অনার্স বিষয়ে
ইঞ্জিনিয়ারিং- এ মাস্টার ডিগ্রী 55% ইঞ্জিনিয়ারিং-এ

যে সকল আবেদনকারী গত বছর স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ এর জন্য আবেদন করেছে এবং যাদের Application ID আছে তারা SVMCM Renewal অপশন থেকে আবেদন করবে।


ট্যালেন্ট সাপোর্ট প্রকল্পের অধীনে পোস্ট-ম্যাট্রিক স্টাইপেন্ড (TSP)


একাদশ ও তার বেশি শ্রেণী স্তরে ৫০% কম নাম্বার প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা স্কলারশিপের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবে।
  • সমস্ত শিক্ষার্থী‌ Higher Secondary, Graduation, Post Graduation, Ph.D, M.Phil প্রভৃতি কোর্সে পাঠরত (কারিগরি ও পেশাদারি কোর্স ছাড়া) তারাই স্কলারশিপের জন্য যোগ্য।
  • বিগত ফাইনাল পরীক্ষায় ৫০% এর কম নম্বর পেয়ে পাশ করেছে এমন শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।
  • আবেদনকারীর পারিবারিক বাৎসরিক আয় ২ লক্ষ টাকার মধ্যে হতে হবে।
  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে অবস্থিত হতে হবে।

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের অনলাইনে আবেদন পদ্ধতি


ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের জন্য আবেদন পদ্ধতি সম্পূর্ণ অনলাইন।
  • আবেদনকারীকে ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ প্রকল্পের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে। এই ওয়েবসাইটটির লিঙ্ক হল wbmdfcscholarship.gov.in
  • এবার New Registration লিঙ্কে ক্লিক করে নিজের প্রতিষ্ঠানটির জেলা বাছতে হবে বেশ কিছু স্টুডেন্ট ইনফরমেশন পুরণ করতে হবে।
  • তারপর SUBMIT and PROCEED বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  • এরপর আবেদনকারীকে Scheme Eligibility ফর্মটি ফিলাপ করে সাবমিট করতে হবে। পরবর্তী ধাপে আবেদনকারী দেখতে পাবে যে সে কোন কোন স্কলারশিপের জন্য যোগ্য।
  • এখন আবেদনকারীকে তার User ID ও Password টি অবশ্যই খাতায় লিখে নিতে হবে।  এই তথ্য দ্বারা সে পরবর্তীকালে Login করতে পারবে।
  • ওয়েবসাইটে Student Login করার পর, শিক্ষার্থীকে তার কিছু Basic Information, Academic Information ও Bank Account Information আপডেট করতে হবে।
  • সমস্ত তথ্য সঠিকভাবে দেওয়ার পর, অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন ফর্মটির একটি preview দেখা যাবে। Final Submit করার আগে আর একবার ভালো করে সমস্ত তথ্য দেখে নাও।
  • এবার Verify and Lock Application বটনে ক্লিক করে স্কলারশিপের আবেদন ফরমটি জমা দিতে হবে। এরপর আর কোন তথ্য পরিবর্তন করা যাবে না।
  • এখন নিজের অ্যাপ্লিকেশন ফর্মটি প্রিন্ট করে নিতে হবে।
  • অনলাইন আবেদন পত্রের প্রিন্ট আউট এর সাথে নিজের ব্যাংকের পাস বইয়ের ফটোকপি (যাতে অ্যাকাউন্ট নাম্বার ও IFSC কোড আছে) এবং বার্ষিক পারিবারিক আয়ের স্বঘোষনা পত্র (যদি প্রয়োজন হয়) নিজের বিদ্যালয় জমা দিতে হবে।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি:


ঐক্যশ্রী প্রকল্প স্কলারশিপের জন্য প্রার্থী বাছাই করা হবে তাদের Academic Qualifications ও আর্থিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে। স্কলারশিপ রিনুয়াল করার জন্য আবেদনকারীকে অবশ্যই শেষ পরীক্ষায় ৫০% নম্বর পেতে হবে।[ঐক্যশ্রী প্রকল্প কবে চালু হয়]

বিভিন্ন স্কলারশিপের জন্য টাকার পরিমান:


নিচের ছকটিতে দেয়া হলো যে, কোন স্কলারশিপের জন্য কত টাকা অনুমোদন পাওয়া যাবে। স্কলারশিপের টাকার পরিমান বিভিন্ন ক্ষেত্রের উপর নির্ভর করে, যেমন – আবেদনকারীর বর্তমান শ্রেণি, হোস্টেলে থাকে কিনা ইত্যাদি।
প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (প্রথম থেকে দশম শ্রেণির ছাত্র ছাত্রীদের জন্য) বছরে ১,১০০ থেকে ১১,০০০ টাকা পর্যন্ত
পোস্ট ম্যাট্রিক স্কলারশিপ (একাদশ থেকে Ph.D পর্যন্ত) বছরে ১০, ২০০ থেকে১৬,৫০০ পর্যন্ত
মেরিট কাম মিনস স্কলারশিপ ( টেকনিক্যাল ও প্রফেশনাল কোর্সের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্) বছরে ২২,০০০ হাজার থেকে ৩৩,০০০ হাজার পর্যন্ত
স্বামী বিবেকানন্দ মেরিটকাম মিনস স্কলারশিপ বছরে ১২,০০০ থেকে ৬০,০০০ হাজার পর্যন্ত
ট্যালেন্ট সাপোর্ট স্কলারশিপ বছরের ২,৫০০ থেকে ৪,৯০০হ পর্যন্ত 

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য:


এই প্রকল্পের অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য গুলি নিচে আলোচনা করা হল।
  • পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের (বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, জৈন, মুসলিম, পারসি ও শিখ) মেধাবী ও দরিদ্র ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এই স্কলারশিপ।
  • একজন শিক্ষার্থী কেবলমাত্র একটি স্কলারশিপ পাওয়ার যোগ্য।
  • Distance Education পাঠরত শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে না।
  • একটি আবেদনের জন্য শুধুমাত্র একটি মোবাইল নাম্বারের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তবে Pre-matric স্কলারশিপের ক্ষেত্রে একটি মোবাইল নাম্বারের মাধ্যমে সর্বোচ্চ দুটি আবেদন করা যাবে।
  • পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম (WBMDFC) সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি নিয়ন্ত্রণ করবে।
  • স্কলারশিপ আবেদনের স্ট্যাটাস জানার জন্য, ঐক্যশ্রী প্রকল্পের ওয়েবসাইটে নিজের User ID দিয়ে login করতে হবে।
  • এই প্রকল্প সংক্রান্ত কোন তথ্য বা সাহায্যের জন্য হেল্প লাইন নাম্বার ১৮০০-১২০২১৩০ অথবা হোয়াটসঅ্যাপ নাম্বার ৮০১৭০৭১৭১৪ এ যোগাযোগ করা যাবে।
  • ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের অনলাইন আবেদনের জন্য এই লিংকে ক্লিক করুন wbmdfcscholarship.gov.in

ঐকশ্রী প্রকল্পের বিস্তারিত তথ্য এখানে আলোচনা করা হলো। কোনরকম বুঝতে অসুবিধা হলে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করুন । 

Leave a Comment